সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ১০:০৪ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
একে ধরিয়ে দিন আমার পদত্যাগের কারন মাহমুদুর রহমান বেলায়েতের ষড়যন্ত্রঃআ’লীগ নেতা জাহাঙ্গীর ট্রাফিক আইন মান্যকারীদের ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা চাটখিল উপজেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি বেলায়েত যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ ফরিদপুরে নিজের বাল্যবিয়ে বন্ধ করলো ছাত্রী, পড়ালেখার দায়িত্ব নিলেন ওসি চাটখিল উপজেলা আ’লীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর সাধারণ সম্পাদক সাকিল কুলিয়ারচরে বাংলাদেশ প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারী শিক্ষক সমিতি’র নির্বাচন-২০২২ অনুষ্ঠিত চাটখিলে ব্রাজিল সমর্থকদের ১৮০ ফুট পতাকা নিয়ে মিছিল টেকসই উন্নয়নে- নবায়ন যোগ্য জ্বালানী” প্রতিপাদ্যে আইডিইবি’র ৫২ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত যৌন নিপীড়নের অভিযোগে ৪ হুজুরকে পেটালেন অভিভাবকেরা

কেবল মন খারাপ মানেই কি বিষণ্ণতা

সকালের কন্ঠ
  • আপডেটের সময় : রবিবার, ৬ নভেম্বর, ২০২২
  • ২৬৮ Time View

মানুষের মানসিক স্বাস্থ্য নানা কারণেই আক্রান্ত হয় যেমন হতাশা,দুশ্চিন্তায়।যখন এর উপায় খুঁজতে গিয়ে মিলেনা কোন মুক্তির পথ তখন মানুষ হয়ে ওঠে জীবনবিমুখ,আবার কেউ কেউ বেছে নেই আত্মহত্যার মতো পথ।বিষণ্ণতাকে রোগ হিসেবে দেখতেই নারাজ সমাজের অধিকাংশ মানুষ। তবে এই বিষণ্ণতা নিতে পারে ভয়াবহ রূপ,যা রোগীকে ঠেলে দিতে পারে অন্তিম পরিণতি মৃত্যুর দিকে। সারা বিশ্বে প্রতি দুই মিনিটে প্রায় তিন জন মানুষ আত্মহত্যা করে এই বিষণ্ণতায়। এবার আসা যাক বিষণ্ণতা কি কেবলই মন খারাপ? না। মন খারাপ মানেই বিষণ্ণতা নয়। বিশেষজ্ঞদের মতে মন খারাপকে বলা যেতে পারে বিষণ্নতার প্রাথমিক স্তর।কেননা এই মন খারাপের চূড়ান্ত পর্যায়টাই মানুষকে ধাবিত করে বিষণ্ণতার দিকে। প্রায় সব মানুষের মধ্যেই দুঃখ,কষ্ট, হতাশা থাকে। অনেক মানুষই এই দুঃখ-কষ্ট,হতাশা কাটিয়ে উঠতে পারে।তবে কিছু কিছু মানুষ তা কাটিয়ে উঠতে পারেনা,আর যারা তা কাটিয়ে উঠতে পারে না তাদের বেশিরভাগ অংশই পড়ে যায় এই বিষণ্ণতার ফাঁদে।

বিষণ্ণতার প্রকারভেদ-
চিকিৎসা বিজ্ঞানে বিষণ্ণতাকে দুই ভাগে ভাগ করা যায়-
১/মেজর ডিপ্রেসিভ ডিসঅর্ডার
২/পারসিস্টেন্ট ডিপ্রেসিভ ডিসঅর্ডার
আবার যদি বিষণ্ণতার গভীরতা নিয়ে আলোচনা করা হয় তাহলে তাকে তিন ভাগে ভাগ করা যায়।
১/ মাইল্ড বা অল্প, ২/মডারেট বা মাঝারি,৩/সিভিয়ার বা গভীর
ঘটনার উপর ভিত্তি করে বিষণ্ণতাকে দুই ভাগে ভাগ করা যায়।
১/এক্সোজেনাস- কোন ঘটনা বা ট্রমাঘটিত কারনে রোগী বিষণ্ণতায় ভোগে।
২/এন্ডোজেনাস-রোগী নিজেও বুঝতে পারে না কেন সে বিষণ্ণতায় ভুগছে।
বিষণ্ণতার কারণ ও লক্ষণঃ
বিষণ্ণতা দেখা দিতে পারে নানা কারনে,যেমন পারিবারিক কোলাহল,অর্থনৈতিক সমস্যা, বিবাহ বিচ্ছেদ,শৈশবের ট্রমা(মানসিক আঘাত), প্রিয়জনের মৃত্যু,একাকীত্ব,মাদকাসক্ত ইত্যাদি।একজন মানুষকে বিষণ্ণতাই তখনই ভুগতে দেখা যায়, যখন সবকিছু তাঁর অনুকূলে না থাকে। আমেরিকান সাইক্রিয়াটিক এসোসিয়েশন এই মানসিক অবসাদের কয়েকটি লক্ষণ বের করেছেন-,একাকীত্বে ভোগা,দীর্ঘ সময় মন খারাপ করে থাকা,কাজে অনীহা,অল্পতেই রেগে যাওয়া, সব কিছু থেকে নিজেকে আড়াল করে রাখা, সঠিক নিয়মে খাবার না খাওয়া ফলে ওজন কমে যাওয়া।
বিষণ্ণতার ভয়াবহতাঃ
বিষণ্ণতা মানুষকে শারীরিক,মানসিক ও সামাজিকভাবে বিকলাঙ্গ করে দিতে সক্ষম। সারা বিশ্বব্যাপী সবরকম অসুখের তালিকায় বিষণ্ণতার অবস্থান চতুর্থ।আর মানসিক রোগের তালিকায় বিষণ্ণতার অবস্থান প্রথম। বাংলাদেশে ২০২১ সালে ২,৫৫২ জন শিক্ষার্থীর ওপর একটি জরিপ চালায় আঁচল ফাউন্ডেশন। তাতে দেখা যায় যে গ্রামের ৮৬ ভাগেরও বেশি শিক্ষার্থী বিষণ্ণতায় আক্রান্ত। শহরের শিক্ষার্থীদের মধ্যে এই হার ৮৪ শতাংশ।আর তাতেই বুঝা যাচ্ছে এটি কতটা ভয়াবহ। আত্মহত্যা করা বেশির ভাগ মানুষই কোন না কোনভাবে বিষণ্ণতার শিকার। বাংলাদেশ ২০২১ সালে ১০১ জন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী আত্মহত্যা করেছেন। আর তাদের মধ্যে অধিকাংশ শিক্ষার্থী ছিলেন বিষণ্ণতার বেড়াজালে বন্দি।
বিষণ্ণতার চিকিৎসাঃ
বিষণ্ণতাকে অনেকে ব্যক্তিগত দুর্বলতা মনে করেন।আর আর এটা নিয়ে চিকিৎসকের পরামর্শ নেবেন কিনা ব্যক্তি হীনমন্যতায় ভোগে।তবে কিছু দিক মানলে সহজেই বিষণ্ণতাকে জয় করা যায়। যদি কোন ব্যক্তি সিভিয়ার বা গভীর বিষণ্ণতায় ভোগে তাহলে তার প্রথম কাজই হলো কোন বিশেষজ্ঞের কাছে পরামর্শ নেওয়া।
আর যদি কোন ব্যক্তি মাঝারি বা অল্প বিষণ্ণতায় ভুগে তাহলে তাকে প্রাকৃতিক উপায়ে লাঘব করা যায়। নিচে কয়েকটি বিষণ্ণতা থেকে মুক্তি লাভের উপায় নিয়ে আলোচনা করা যাক।
* অপূর্ণতা ও অপ্রাপ্তি বিষয়গুলো নিয়ে বেশি চিন্তা না করা।
*ধর্মীয় আনুগত্য ও স্রষ্টার উপাসনা মনকে অনেকটাই প্রশান্তি দেয় ও সতেজ করে তুলে।
*একাকীত্ব এড়িয়ে চলা।
* মানসিকভাবে খুব বেশি ক্লান্ত হলে দূরে কোথাও ভ্রমণে যাওয়া।
* প্রতিকূল ও অনুকূল পরিবেশের সাথে খাপ খাওয়ানো।
*সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে যতটুকু সম্ভব নিজেকে বিরত রাখা।
*নিজেকে সময় দেওয়া,ব্যায়াম করা,খাদ্যাভাসের শৃঙ্খলা আনা,পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমানো।

মোঃজাহিদুল হাসান
পদার্থবিজ্ঞান বিভাগ
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়

শেয়ার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও
  • © All rights reserved shokalerkatho© 2022
Powered Sokaler Kontho
themesba-lates1749691102